আজ রবিবার, আগস্ট ৯, ২০২০ইং

এএফসি কাপেও ৫ বদলী

ভোরের সিলেট ডেস্ক
করোনা বিরতি কাটিয়ে অক্টোবরে শুরু হতে যাওয়া এএফসি কাপে ৫ জন করে বদলি খেলোয়াড় মাঠে নামানোর সুযোগ পাবে দলগুলো।

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ জানান, এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন (এএফসি) এ বিষয়ে সংশোধনীগুলো বিভিন্ন সদস্য সংস্থার নিকট গত সোমবার পত্র মারফত প্রেরণ করেছে।

করোনা বিরতির পর অল্প সময়ে ফুটবলারদের অনেক বেশি ম্যাচ খেলাতে হবে। তাই বদলির নিয়মে কিছু অস্থায়ী পরিবর্তন এনেছিল ফুটবল আইন নির্ধারণকারী সংস্থা- আইএফএবি।

ফিফার সুপারিশে তারা ম্যাচে তিন জন বদলির জায়গায় পাঁচ জন বদলির অনুমতি দেয়। তবে, এটি প্রয়োগের ক্ষেত্রে টুর্নামেন্ট আয়োজনকারী সংস্থাগুলোকে স্বাধীনতা দেওয়া হয়েছিল।

অক্টোবরে এএফসি কাপের প্রিলিমিনারি রাউন্ডে ১৭ দিনের ব্যবধানে ৫টি ম্যাচ খেলতে হবে বাংলাদেশের বসুন্ধরা কিংসকে।

বুধবার এক ভিডিও বার্তায় আবু নাঈম সোহাগ এএফসি কাপে বদলির খেলোয়াড় প্রসঙ্গে বলেন, ‘খেলা চলাকালীন সময়ে প্রতিটি দল সর্বোচ্চ পাঁচ জন খেলোয়াড় পরিবর্তন করতে পারবে এবং সর্বোচ্চ তিন বারে পাঁচ জন খেলোয়াড় পরিবর্তন করতে পারবে। উভয় দল একই সময়ে খেলোয়াড় পরিবর্তন করলে উভয় দলেরই একবার করে খেলোয়াড় পরিবর্তন করা হয়েছে বলে গণ্য হবে’

‘খেলোয়াড় বদলের অব্যবহৃত সুযোগ খেলার অতিরিক্ত সময়ে ব্যবহার করা যাবে। নকআউট স্টেজের খেলায় অতিরিক্ত সময়ে উভয় দলের পক্ষে একজন করে অতিরিক্ত খেলোয়াড় পরিবর্তনের সুযোগ থাকবে।’

খেলোয়াড় রেজিস্ট্রেশনের তারিখ প্রসঙ্গে বলেন, এএফসি কাপ-২০২০ এর সাউথ জোনের প্রতিটি দলের খেলোয়াড় রেজিস্ট্রেশনের শেষ তারিখ ৮ অক্টোবর। প্রতিটি দল সর্বোচ্চ ৩৫ জন এবং সর্বনিম্ন ১৮ জন খেলোয়াড় রেজিস্ট্রেশন করতে পারবে। প্রতিটি ম্যাচ ডে’তে সংশ্লিষ্ট ম্যাচের জন্য সর্বোচ্চ ১৮ জন খেলোয়াড় রেজিস্ট্রেশন করতে পারবে। প্রতিটি দলকে পূর্বে রেজিস্ট্রেশনকৃত খেলোয়াড়দের জার্সি নম্বর অপরিবর্তিত রেখে নতুন রেজিস্ট্রেশনকৃত খেলোয়াড়দের নতুন জার্সি নম্বর দিতে হবে।’

ভোরের সিলেট/দেশ রুপান্তর/টিএ