আজ রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২০ইং

হোর্হে মেসির কথায় স্পষ্ট মেসি কোনোভাবে থাকতে চান না বার্সায়, কিন্তু?

স্পোর্টস ডেস্কঃ হোসে মারিয়া বার্তোমেউয়ের সঙ্গে লিওনেল মেসির বাবার বৈঠকে কোনো সুরাহা হবে তো? গতকাল স্থানীয় সময় বিকেলে সভাটি শুরুর আগে দুশ্চিন্তার পারদ চড়ছিল বার্সা সমর্থকদের মনে। বিমানবন্দরে নেমে অবশ্য আশার তেমন কিছু শোনাননি মেসির বাবা ও এজেন্ট হোর্হে মেসি। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে তাঁর কথোপকথনটা শুনলেই বুঝতে পারবেন সমর্থকরা।

 

প্রশ্ন : সব মিলিয়ে কেমন মনে হচ্ছে?

হোর্হে : কঠিন।

প্রশ্ন : কঠিন বলতে কি মেসির বার্সায় থাকা বোঝাচ্ছেন?

হোর্হে : হ্যাঁ।

প্রশ্ন : ম্যানসিটির সঙ্গে কোনো যোগাযোগ হয়েছে?

হোর্হে : আমি জানি না।

প্রশ্ন : পেপ গার্দিওলার সঙ্গে কথা বলেছেন? ম্যানসিটি পরবর্তী গন্তব্য হিসেবে কেমন?

হোর্হে : পেপের সঙ্গে কথা হয়নি। আমি কিছু জানি না, এখনো কিছুই হয়নি।

প্রশ্ন : বার্সায় মেসিকে দেখেন?

হোর্হে : কঠিন, কঠিন।

 

হোর্হের কথায় স্পষ্ট মেসি কোনোভাবে থাকতে চান না বার্সেলোনায়। আদালতের বদলে শুধু আলোচনার টেবিলে সারতে চান বিদায়ের আনুষ্ঠানিকতা। আর বিদায়ের পর সম্ভাব্য গন্তব্য ম্যানচেস্টার সিটি। কিন্তু চাইলেই তো হবে না। ৭০০ মিলিয়ন ইউরোর রিলিজ ক্লজ যে আছে চুক্তিতে। তাঁকে বিনা পয়সায় কেন ছাড়বে বার্সা? মেসি, তাঁর বাবা কিংবা আইনজীবীরা মানছেন না এটা। তাঁদের মতে, মেসি চ্যাম্পিয়নস লিগের পরই মুক্ত হয়ে গেছেন চুক্তির বেড়াজাল থেকে।

গতকালের বৈঠকটি নিয়ে অবশ্য তৈরি হয়েছিল অনিশ্চয়তা। ‘ইএসপিএন’ জানায় বার্তেমোউয়ের সঙ্গে আজ সকালে আলোচনায় বসবেন হোর্হে মেসি। তবে কাতালুনিয়ার ‘আরএসিওয়ান’ রেডিও জানায় বৈঠকটি হওয়ার কথা গতকালই। ব্যক্তিগত বিমানে বার্সেলোনায় এসে আইনজীবিদের সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ আলোচনা করেছেন হোর্হে মেসি। ওদিকে বার্তোমেউ ব্যস্ত ছিলেন ইভান রাকিতিচের বিদায়ী অনুষ্ঠানে। ট্রান্সফার ফি দিতে রাজি না হলে নাকি মেসিকে আদালতে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছেন তিনি! তাই বৈঠকে যা-ই হোক সহজ সমাধান আশা করা কঠিন বলেই জানিয়েছে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম। এক ধাপ এগিয়ে ইংল্যান্ডের ‘দ্য ডেইলি রেকর্ড’ জানিয়েছে, ম্যানসিটির সঙ্গে ৭০০ মিলিয়ন ইউরো বেতনে মেসির পাঁচ বছরের চুক্তিতে রাজি হওয়ার কথা। তাতে প্রথম তিন বছর ম্যানসিটিতে আর শেষ দুই বছর একই মালিকানার মার্কিন ফুটবল দল নিউ ইয়র্ক সিটিতে খেলবেন তিনি। এই চুক্তিতে মেসির বেতনের অঙ্কটা দাঁড়ায় বছরে ১৪০ মিলিয়ন ইউরো, মাসে ১১.৬, সপ্তাহে ২.৬৯ মিলিয়ন ইউরো। প্রতিদিনের হিসাবে তিন লাখ ৮৪ হাজার ৬১৫ ইউরো, ঘণ্টার হিসাবে ১৬ হাজার ২৫ ইউরো! এ জন্যই হয়তো স্পেনের জনপ্রিয় টিভি শো ‘এল চিরিঙ্গিতো দে হুগোনেস’ অনুষ্ঠানে সংবাদকর্মী এদু আগুরেও মন্তব্য করেছেন, ‘আমার মতে মেসি ফুটবল ইতিহাসের জঘন্যতম বিশ্বাসঘাতকতা করছে।’

বার্সা অবশ্য মেসিকে ছাড়ার কথা ভাবছেই না। এ জন্য গতকাল টুইটারে নিজেদের নতুন জার্সি বিক্রির তালিকায় মধ্যমণি করে রাখে মেসি নামটি। ভক্তরা অবশ্য এজন্য একহাত নিয়েছে বার্সাকে। তবে তিনি এখনো আছেন খেলোয়াড়দের ইনস্টাগ্রাম গ্রুপে। সে কথাই জানালেন ডাচ মিডফিল্ডার ফ্রাংকি ডি ইয়ং, ‘কোথাও যেতে চাচ্ছে কি না জানার মতো গভীর সম্পর্ক মেসির সঙ্গে নেই আমার। এটুকু বলতে পারি মেসি এখনো আছে বার্সার হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে।’

বার্সেলোনার আগামী নির্বাচনের প্রার্থী ভিক্তর ফন্তেও মনে করছেন মেসির বার্সায় থাকাটা এখন কঠিন, ‘আশা করব মেসি ওর সিদ্ধান্ত বদলাবে। তবে মনে হয় না এ রকম কিছু হবে।’ মার্কা, এএস

ভোরেরসিলেট/কালেরকন্ঠ/বিএ

আজকের সংবাদ