আজ বুধবার, আগস্ট ১২, ২০২০ইং

সুখবর পেয়েও খুশি নন উমর আকমল

ভোরের সিলেট ডেস্ক
করোনাকালে সুখবর পেলেন পাকিস্তানের উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান উমর আকমল। ১৮ মাস কমিয়ে দেয়া হয়েছে তার সাজা।

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) জানিয়েছে, জুয়াড়ির প্রস্তাব গোপন করায় তিন বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন উমর আকমল। সেই সাজা কমাতে আপিল করেছিলেন তিনি। তার সেই আপিল আমলে নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। তার সাজা ১৮ মাস কমিয়ে দেয়া হয়েছে। ফলে নতুন নিষেধাজ্ঞায় ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে ২০২১ সালের আগস্ট পর্যন্ত খেলার বাইরে থাকতে হবে এ ক্রিকেটারকে।

বুধবার আকমলের পক্ষে এ রায় দেন পাকিস্তানের সুপ্রিমকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারক ফকির মোহাম্মদ খোকর।

তবে, এমন রায়ে খুশি নন উমর আকমল। নিষেধাজ্ঞা পুরোটাই মওকুফ চান এ ক্রিকেটার।

আপিলের রায়ের পর উমর বলেছেন, ‘এখনও আমি সন্তুষ্ট নই। শাস্তির বাকিটা নিয়ে পরে সিদ্ধান্ত নেব এবং আরও কমানোর চেষ্টা করব। আমার আইনজীবী ও পরিবারের সঙ্গে কথা বলব, কীভাবে সামনে এগোতে পারি। তবে আমার আইনজীবীদের কথা যথাযথভাবে শুনে সাজা কমানোয় বিচারকের প্রতি কৃতজ্ঞতা।’

কেন তিনি এখনও সন্তুষ্ট নন, তার ব্যাখ্যায় এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান বলেন, ‘আগেও অনেক ক্রিকেটার আমার মতো ভুল করেছে। দেখুন তারা কতটা শাস্তি পেয়েছে, আমি কতটা! আপাতত সবাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’

উল্লেখ্য, পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) স্পট ফিক্সিংয়ের খবর জানতেন উমর আকমল। কিন্তু তিনি ক্রিকেট বোর্ডকে বিষয়টি জানাননি। এ ছাড়া তার আচরণও ছিল প্রশ্নবিদ্ধ। যে কারণে চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে তাকে সাময়িকভাবে নির্বাসিত করা হয়েছিল। পরে দুই নিয়ম ভাঙার দায়ে আকমলকে গত ২৭ এপ্রিল তিন বছরের জন্য নিষিদ্ধ করে পিসিবির ডিসিপ্লিনারি কমিটি।

২৯ বছর বয়সী উমর আকমল পাকিস্তানের জার্সি গায়ে ৫৩ টেস্টে ১০০৩ রান, ১৫৭ ওয়ানডেতে ৩১৯৪ রান করেছেন। টি-টোয়েন্টিতেও দাপুটে ইনিংস রয়েছে তার। ৫৮ টি-টোয়েন্টিতে ১৬৯০ রান করেছেন আকমল।

পাকিস্তানের এ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান কামরান আকমলের ভাই এবং বর্তমান পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজমের চাচাতো ভাই।
তথ্যসূত্র: ক্রিকবাজ।

ভোরের সিলেট/যুগান্তর/টিএ