আজ বুধবার, আগস্ট ১২, ২০২০ইং

কুয়েতে ১ আগষ্ট থেকে ২০টি দেশের সাথে বাণিজ্যিক ফ্লাইট চালু, তালিকায় নেই বাংলাদেশ

মোঃবিলাল উদ্দিন, কুয়েত প্রতিনিধি: মরণব্যাধি মহামারী করোনা ভাইরাসের ফলে দীর্ঘদিন মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কুয়েতের বন্ধ ছিল বাণিজ্যিক বিমান চলাচল। দেশটিতে বর্তমানে এ ভাইরাসের পুরো পুরো নিয়ন্ত্রণে না আসলেও ধীরে ধীরে পরিস্থিতির উন্নতি লক্ষ করা যাচ্ছে। স্বাস্থ্য বিধিমালা মেনে ধাপে ধাপে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসছে কুয়েত।

ইতিমধ্যেই পুরো কুয়েত লকডাউনমুক্ত আর অব্যাহত রয়েছে রাত ৯ টা থেকে ভোর ৩ টা পর্যন্ত কারফিউ। গণপরিবহন বাদে ট্যাক্সি চলাচল অব্যাহত রয়েছে। অফিস আদালতে ৫০% কর্মচারীদের উপস্থিতিতে চলছে অফিসিয়াল কার্যক্রম। সরকারের পরিকল্পনা ও ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ১ আগষ্ট ২০২০ থেকে বাণিজ্যিকভাবে খুলে দেয়া হবে কুয়েত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর।

কুয়েত সিভিল অ্যাভিয়েশন ঘোষণা করছে ১ আগষ্টে বিশ্বের ২০টি দেশের সাথে বাণিজ্যিকভাবে বিমান চলাচল শুরু হবে। কুয়েত সিভিল অ্যাভিয়েশনের সাধারণ প্রশাসনের বিমান পরিবহন বিভাগের পরিচালক আব্দুল্লাহ আল রাজি ঘোষণা করছেন, কুয়েতে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পরিচালিত বিমানগুলো ১ আগষ্ট থেকে ২০টি দেশের সাথে বাণিজ্যিকভাবে বিমান চলাচল শুরু হবে। যেসব দেশের সাথে বাণিজ্যিকভাবে বিমান চলাচল শুরু হবে তা হচ্ছে, আমিরাত, ওমান, কাতার, মিশর, হার্জেগোভিনা, পাকিস্তান, যুক্তরাজ্য, ইরান, সুইজারল্যান্ড, আজারবাইজান, ভারত, বাহরাইন, লেবানন, জর্দান, বসনিয়া, শ্রীলঙ্কা, ইথোপিয়া, তুরস্ক, নেপাল, জার্মানি, ফিলিপাইন।

কুয়েত বিমান পরিবহন বিভাগের পরিচালক আল রাজি বলেন, সকল স্বাস্থ্য বিধিমালা মেনে যাত্রী বহন করতে কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

এদিকে ২০ টি দেশের সাথে আনুষ্ঠানিকভাবে বাণিজ্যিক বিমান চলাচল শুরু হবে কিন্তু এ তালিকায় নেই বাংলাদেশ। এতে বাংলাদেশে আটকে পড়া কুয়েত প্রবাসী বাংলাদেশীদের কুয়েতে ফেরা নিয়ে দেখা দিলো অনিশ্চয়তা। কুয়েত সরকার এখনও বাংলাদেশে আটকে পড়াদের কুয়েত প্রবেশের কোন আনুষ্ঠানিক নীতিমালা ঘোষণা করেনি। ফলে হাজার হাজার কুয়েত প্রবাসী বাংলাদেশীরা দেশ থেকে আসতে শুরু হলো নতুন জটিলতা।

এমবিউ/বিএ